উৎসব

২১ শে ফেব্রুয়ারি স্ট্যাটাস, ক্যাপশন, কবিতা, ছন্দ ,ছবি ২০২৩

২১ শে ফেব্রুয়ারি 1947 সালে, ভারত ও পাকিস্তান দ্বিজাতিবাদের ভিত্তিতে বিভক্ত হয়েছিল। ভারতের সাথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভক্তির পর, ভাষা, জীবনধারা এবং ভৌগোলিক এলাকার পার্থক্য থাকা সত্ত্বেও, পাকিস্তান নামে পরিচিত একটি দেশ সম্পূর্ণরূপে পৃথক অঞ্চল, পূর্ব পাকিস্তান এবং পশ্চিম পাকিস্তান, অসাম্প্রদায়িক সংখ্যাগরিষ্ঠতার উপর ভিত্তি করে সহজে আকৃতিতে পরিণত হয়। . জীবনযাত্রা, ভাষা, শিক্ষা, আচার-আচরণ এবং আরও অনেক কিছুর ভিন্নতার কারণে দুই প্রদেশের মানুষ একই সারির ভেতরে কল্পনা করা যায় না। যদিও পশ্চিম পাকিস্তান জনসংখ্যার বাক্যাংশে সংখ্যালঘুতে পরিবর্তিত হয়েছিল, তবুও তারা বেসামরিক সরবরাহকারী, সেনাবাহিনী এবং সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় অবস্থানগুলি শাসন করেছিল। ধীরে ধীরে তারা নিজেদেরকে বাঙালির শাসক ও প্রজা হিসেবে বিবেচনা করতে থাকে।

অনেক কিছু করার পরও তারা ক্লান্ত হননি। তারা নতুন ধাঁচের রাষ্ট্রের প্রশিক্ষণ ডিভাইস এবং জাতি পরিচালনার জন্য উর্দু ভাষাকে দেশের ভাষা হিসাবে প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা শুরু করে। মোটামুটি এই পরিকল্পনা আয়ত্ত করার পর তমদ্দুন মজলিশের সেক্রেটারি অধ্যাপক আবুল কাসেমের ব্যবস্থাপনায় ঢাকায় প্রতিবাদ সভা ও সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশে উর্দুর সাথে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি ওঠে। আর এই পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৪৭ সালের ডিসেম্বরে ‘রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ’ গঠন করা হয় ২১ শে ফেব্রুয়ারি । তাই পশ্চিম পাকিস্তান এবং পূর্ব পাকিস্তানের মধ্যে রক্ত পাতহীন যুদ্ধ সহ্য করে।

২১ শে ফেব্রুয়ারি স্ট্যাটাস

পাকিস্তান কর্তৃপক্ষের অসংখ্য স্ব-লক্ষ্যযুক্ত পছন্দের কারণে, বাঙালিরা আবার সোচ্চার হয়ে উঠেছে। ফলস্বরূপ, 11 মার্চ, 1948 সালে, বাংলা রাজ্য ভাষার দাবিতে আরও একবার মিছিল করে। মিছিলের অপরাধে শেখ মুজিবুর রহমান, কাজী গোলাম মাহাবুব, অলি আহাদ, শওকত আলী, সামসুল হকসহ আরও অনেককে গ্রেফতার করা হয়।

বাংলাদেশের সোনার ছেলে,
ভাষা শহিদ দের দল।
জীবন দিয়ে এনে দিল বাংলা ভাষার ফল…
তাদের দানে আজকে মোরা
স্বাধীন ভাবে বাংলা বলি।
সেই সোনাদের ত্যাগের কথা
কেমন করে ভুলি।

প্রানটা জুরে যায়
যখন শুনি গ্রাম বাংলার গান,
মন ভরে যায়
যখন প্রান খুলে কথা বলি মায়ের ভাষায়,
গরভে বুকটা ভরে উঠে তাদের জন্য
যারা জীবন দিয়েছে ভাষার তরে।

দোয়ারে বসে মা আবার ধান ভাঙ্গে,
বিন্নি ধানের খৈ ভাজে,
খোকা তার কখন আসে
কখন আসে।

ফাল্গুণ মানে বর্ণ মালার খেলা,
ফাল্গুণ মানে হাজার ফুলের মেলা,
ফাল্গুণ মানে ফুটন্ত লাল গোলাপ,
ফাল্গুণ মানে স্বাধীনতার আলাপ,
ফাল্গুণ মানে ভাষার মেলা
আমার তোমার সবার।
সবাইকে ২১শে ফেব্রুয়ারীর শুভেচ্ছা।

যদি এই ভাষাটা না থাকতো
তবে এত কাব্য এত কবিতা কে লেখত।
যদি এই ভাষাটা না থাকতো
তবে ভালোবাসি এই মিষ্টি কথাটা কে বলত।
যদি এই ভাষাটা না থাকতো
তবে মাকে এত মধুর সুরে কে ডাকত।
সব্বাইকে ২১শে ফেব্রুয়ারীর শুভেচ্ছা।

২১ শে ফেব্রুয়ারি ক্যাপশন

এই একুশ আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো তাই আমি এই ২১ ভুলতে পারিনা!!

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সবাইকে জানাই ২১ শে ফেব্রুয়ারির শুভেচ্ছা

যারা ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছে তাদের সব সময় মনে রাখতে হবে
তাদের জন্য একদিন নয় তাদের জন্য পুরো বছর রাখা উচিত।

আজ আমরা বাংলা বলতে পারি শুধুমাত্র ভাষা শহীদদের ত্যাগের বিনিময়ে, তাই আমরা তাদের ভুলবো না।

এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলে যারা আমরা তোমাদের ভুলব না

যতকাল রবে এই বাংলা রয়ে যাবে সকল ভাষা শহীদদের স্মরণ।

যুগ যুগ ধরে ভাষা শহীদরা রয়ে যাবে বাঙালির মনে
তাই এই দিনটিতে সবাইকে জানাই একুশে ফেব্রুয়ারির শুভেচ্ছা

২১ শে ফেব্রুয়ারি কবিতা, ছন্দ

রফিক, সালাম, বরকত, আরো হাজার বীর সন্তান,
করলো ভাষার মান রক্ষা বিলিয়ে আপন প্রান ,
যাদের রক্তে রাঙ্গানো একুশ ওরা যে অম্লান,
ধন্য আমার মাতৃভাষা ধন্য তাদের প্রান ।

ভাষা শহীদদের ত্যাগের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি বাংলা ভাষা। তাই সকল ভাষা শহীদদের স্মরণে একুশে ফেব্রুয়ারী।

যাদের ত্যাগের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি বাংলা ভাষা আমরা তাদের কখনো ভুলবো না।

বেঁচে থাকুক ভাষা শহীদরা সকল বাঙ্গালীর মনে। সবাইকে একুশে ফেব্রুয়ারি শুভেচ্ছা।

মোদের গর্ব মোদের আশা আহা মরি বাংলা ভাষা। একুশে ফেব্রুয়ারি শুভেচ্ছা।

আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি
আমি কি ভুলিতে পারি!

২১ শে ফেব্রুয়ারি ছবি

 

২১ শে ফেব্রুয়ারি ছবি
২১ শে ফেব্রুয়ারি ছবি

২১ শে ফেব্রুয়ারি ছবি

২১ শে ফেব্রুয়ারি ছবি

আরো পড়ুন,

বিজয় দিবসের স্ট্যাটাস, শুভেচ্ছা বার্তা উক্তি ও কবিতা

হ্যাপি ফ্রেন্ডশিপ ডে -মেসেজ ,ক্যাপশন ,পিক -SMS-friendship day –

Liton Roy

আমি লিটন রায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা বিভাগ হতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করে 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *