উক্তি

মেয়েদের নিয়ে ইসলামিক উক্তি, পর্দা নিয়ে উক্তি

মেয়েদের নিয়ে ইসলামিক উক্তি,আসসালামু আলাইকুম সবাইকে আমাদের ওয়েব সাইটের পক্ষ থেকে অভিনন্দন। আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন। আলহামদুলিল্লাহ আমরাও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। পাঠক বন্ধরা আজকে আমরা আপনাদের জন্য মেয়ে নিয়ে ইসলামিক উক্তি ও মেয়ে নিয়ে ইসলামিক উক্তি তুলে ধরবো। আমাদের পোস্টে আপনারা সব কিছু খুঁজে পাবেন। আশা করি আমাদের পোস্ট গুলো সবার ভালো লাগবে। আপনারা আমাদের পোস্ট থেকে মেয়ে নিয়ে ইসলামিক উক্তি গুলো সংগ্রহ করে আপনি আপনার ফেসবুক বা সোশাল মিডিয়ায় বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে পারবেন।

মেয়ে মানেই মা মেয়ে মানেই বোন মেয়ে মানেই পুরুষশাসিত সমাজে পুরুষের সাথে কাধ মিলিয়ে সমান তালে পথ চলা। একটি মেয়ে যখন জন্ম নেয় তখন সে ছোট্ট শিশু তারপর কিশোরী তারপর সেই মেয়েটি যখন প্রাপ্ত বয়স্ক হয় তখন সে মেয়ে বা নারীতে রুপান্তর হয়। মেয়ে শব্দটি কখনো কিশোরী কখনো যুবতী আবার কখনো বয়স্কার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। যে কোনো সমাজে মেয়েদের প্রতি আচরণ ও সম্মান প্রকাশ পায় সে সমাজের শিক্ষা ও সংস্কৃতির উপর। কারণ সমাজের সংস্কৃতি নারীর অবস্থানের উপর ঘনিষ্ঠ ভাবে জড়িত। যে সমাজের সংস্কৃতিতে মেয়েদের সামাজিক অবস্থান কম সে সমাজে মেয়েদের পরিবারে ও তাদেরকে মানবেতর জীবনযাপন করতে হয়।

মেয়েদের নিয়ে ইসলামিক উক্তি

মেয়েদের নিয়ে ইসলামিক উক্তি

মেয়েদের নিয়ে উক্তি,মেয়ে আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে বাবা মায়ের জন্য রহমত বয়ে আনে। এখন প্রতিটি ধর্ম এ মেয়েদেরকে তাদের যোগ্য সম্মান দেওয়া হয়। কেবলমাত্র ইসলামে মেয়ে বা নারীদের কে সেই আদিকাল থেকে মেয়ে বা নারীদের কে তাদের যোগ্য সম্মান দেওয়া হয়েছে। ইসলামে মেয়েদের কে ঘরের রানী বলা হয়ে থাকে।

মেয়ে আল্লাহ তায়ালার পক্ষ হতে উত্তম নেয়ামত। কেননা এই মেয়ে কখনো কারো ঘরে কন্যা শিশু আবার কখনো কারো মা কখনো বোন আবার কখনো বা কারো স্ত্রী বা ঘরোনী। কেবলমাত্র একটি মেয়ে বা একজন মায়েই পারে সমাজকে সুন্দর ও শিক্ষিত মানব জাতি উপহার দিতে। মেয়ে যখন কন্যা তখন সে পিতা মাতার জন্য জান্নাত এবং যখন সে স্ত্রী বা জীবনসাথী তখন সে স্বামীর জন্য জান্নাতের সঙ্গি।

১।সেই নারী সবচেয়ে উত্তম যে তার
যৌবনের সমস্ত ভালবাসা আমানত রাখে তার স্বামীর জন্য

২।পর্দা হলো কোনো ব্যক্তির ব্যক্তিগত পছন্দ।
এটা ফ্যাশনের জন্য না পরে স্রষ্টার প্রতি আনুগত্যের জন্য পরা উচিত।
এটা মানুষকে দেখানোর জন্য না পরে বরং স্রষ্টার নৈকট্য পাবার জন্য পরা উচিত।

৩।আমি আমার শালীনতা
পবিত্রতা বজায় রাখার জন্য
বর্তমান স্রতের বিপরীতে
থেকে পর্দা করছি
একটু সাহস করে আপনিও এগিয়ে আসুন
চেস্টা করুন আপনিও পারবেন.

৪।দাড়ির সাথে পুরুষ এবং পর্দার সাথে নারী-
এটা এ পর্যন্ত সবচেয়ে ভালো সমন্বয়।

৫।রাসূলুল্লাহ (সা.) আরো ইরশাদ করেন, ‘যার গৃহে কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহন করল, অতঃপর সে তাকে (কন্যাকে) কষ্টও দেয়নি, তার ওপর অসন্তুষ্ট ও হয়নি এবং পুত্র সন্তানকে প্রাধান্য দেয়নি, তাহলে ওই কন্যার কারণে মহান আল্লাহ তায়ালা তাকে বেহেশতে প্রবেশ করাবেন।’ (মুসনাদে আহমদ, ১:২২৩)

৭।রাসূলুল্লাহ (সা.) আরো বলেছেন, ‘যে ব্যক্তির তিনটি কন্যা সন্তান হবে, এবং সে তাদেরকে এলেম-কালাম, আদব-কায়দা শিক্ষা দিবে, এবং যত্নের সঙ্গে প্রতিপালন করবে ও তাদের ওপর অনুগ্রহ করবে! সে ব্যক্তির ওপর অবশ্যই জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যাবে।’

৮।যে ব্যক্তির তিনটি কন্যা সন্তান বা তিনজন বোন আছে অথবা দু’জন কন্যা সন্তান বা বোন আছে। সে তাদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেছে এবং তাদের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালাকে ভয় করেছে। তার জন্য রয়েছে জান্নাত।’ (জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৬)

৯।যে ব্যক্তিকে কন্যা সন্তান লালন-পালনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এবং সে ধৈর্যের সঙ্গে তা সম্পাদন করেছে সেই কন্যা সন্তান তার জন্য জাহান্নাম থেকে আড়াল হবে। (জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৩)

১০যে ব্যক্তি দুইজন কন্যা সন্তানকে লালনপালন ও দেখাশুনা করল (বিয়ের সময় হলে ভালো পাত্রের কাছে বিবাহ দিল) সে এবং আমি জান্নাতে এরূপ একসঙ্গে প্রবেশ করব যেরূপ এ দুটি আঙুল। তিনি নিজের দুই আঙুল মিলিয়ে দেখালেন। (জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৪)……………

মেয়েদের নিয়ে উক্তি

মেয়েদের নিয়ে  উক্তি,মেয়ে নিয়ে বড় বড় কবি সাহিত্যিকরা অনেক উক্তি দিয়েছেন।ইসলামে মেয়েদের কে নিয়ে অনেক উক্তি আছে। তাই আজকে আমরা কিছু ইসলামিক উক্তি আপনাদের মাঝে প্রকাশ করবো। আশা করি আমাদের উক্তি গুলো আপনাদের সবার ভালো লাগবে। আমাদের পোস্ট থেকে আপনারা নিজের পছন্দের উক্তি গুলো সংগ্রহ করে আপনাদের ফেসবুক বা সোশাল মিডিয়ায় বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে পারবেন। আপনাদের শেয়ারের মাধ্যমে অনেকের মেয়ে নিয়ে ভুল ধারণা ভেঙে যাবে। অনেকে আছে যারা মা বোন বা স্ত্রীকে নিচু চোখে দেখে আপনার পোস্টের মাধ্যমে তারা তাদের ভুল গুলো শুধরিয়ে নিতে পারবে এবং পুরো মেয়ে মেয়ে জাতিকে সম্মানের চোখে দেখবে।নিচে আমাদের মেয়ে নিয়ে ইসলামিক উক্তি গুলো দেওয়া হলোঃ

মেয়েদের রানীর মতো ভাবুন। একজন রানী ব্যর্থ হতে ভয় পায় না। ব্যর্থতা মহানতার আরেকটি সোপান।

– অপরাহ উইনফ্রে

মেয়েরা কখনো হারে না। সমাজ কি বলবে এটা বলে ভয় দেখিয়ে তাদের হারানো হয়।

– এ পি জে আব্দুল কালাম

আমি চাই প্রতিটি মেয়েরা জানুক যে তার কণ্ঠ পৃথিবীকে বদলে দিতে পারে।

– মালালা ইউসুফজাই

মেয়ে হিসাবে আমরা যা করতে পারি তার কোন সীমা নেই।

– মিশেল ওবামা

মেয়েদের বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো অব্যবহৃত প্রতিভার আধার।

– হিলারি ক্লিনটন

যেখানে একজন মেয়ে আছে, সেখানে জাদু আছে।

– নটোজাকে শাঙ্গে

মেয়েরা ভালোবাসার জন্য, জানার জন্য নয়।

– অস্কার ওয়াইল্ড

মেয়েদের স্মার্ট হতে ভয় পাওয়া উচিত নয়।

– এমা ওয়াটসন

যে কোন মেয়েরা সবচেয়ে ভালো সুরক্ষা হল সাহস।

– এলিজাবেথ ক্যাডি

আপনার জীবন আপনার নয় যদি আপনি ক্রমাগত চিন্তা করেন অন্যরা কি ভাবছে।

– সংগৃহীত

সবচেয়ে নির্বোধ মেয়ে ও একজন বুদ্ধিমান পুরুষকে সামলাতে পারে কিন্তু নির্বোধকে সামলাতে প্রয়োজন বুদ্ধিমতী নারী।

– রুডইয়ার্ড কিপলিং

মা, বোন, স্ত্রী অথবা কন্যা, যে রূপেই হোক না কেন, মেয়েরা প্রেম পুরুষের প্রেম অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ ও পবিত্র।

– এইচ. জি. লরেন্স

মেয়েদের পর্দা নিয়ে উক্তি

সব সৃষ্টির মধ্যে মানুষ আল্লাহ তায়ালার সবচেয়ে সুন্দর সৃষ্টি। মানুষকে আশরাফুল মাখলুকাত বলা হয় যার অর্থ সৃষ্টির সেরা জীব। মানুষের মধ্যে আছে নারী পুরুষ। ইসলামে নারীদের কে তাদের যোগ্য সম্মান দেওয়া হয়েছে। পৃথিবীতে আর কোনো ধর্ম মেয়েদেরকে এতোটা সম্মান দেয়নি যতোটা ইসলাম দিয়েছে। ইসলামে বলা হয়েছে শিশুরা হলো জান্নাতের ফুল আর মধ্যে মেয়ে শিশুরা অধিক সুগন্ধি যুক্ত ফুল। পাঠক বন্ধুরা আপনারা যারা মেয়ে নিয়ে ইসলামিক উক্তি খুঁজে মেয়েদের নিয়ে পর্দা নিয়ে ইসলামিক উক্তি,বেড়াচ্ছেন তারা আমাদের ওয়েব সাইট থেকে সংগ্রহ করতে পারেন। আমাদের পোস্টে এমন কতগুলো ইসলামিক উক্তি তুলে দেওয়া হয়েছে যেগুলো আপনার ব্যক্তিগত জীবনের পাশাপাশি সামাজিক জীবনে ও কাজে লাগাতে পারবেন। আমাদের পোস্টে আপনি ইসলামিক উক্তির পাশাপাশি হাদিস ও পাবেন। আপনি চাইলে আমাদের এই মেয়েদের নিয়ে পর্দা নিয়ে ইসলামিক উক্তি গুলো আপনার পরিবার বন্ধু বা আপনার পরিচিতদের মাঝে শেয়ার করতে পারবেন। আপনার এই শেয়ারের মাধ্যমে হয়তো সমাজ টাই বদলে যেতে পারে কেননা একজন শিক্ষিত মায়েই পারে একটা আদর্শ জাতি সমাজ কে উপহার দিতে

মেয়েদের পর্দা নিয়ে ইসলামিক উক্তি

১।আমার কাছে হিজাব ই সব।
হিজাব ই আমার প্রথম পছন্দ,
হিজাবই আমার পরিচয়,,,,

২।যখনি আমি হিজাব পরিধান করি
তখনি ভাবি যে প্রকৃতপক্ষে, দিনিয়া থাকে আবৃত হয়ে
আমি আখিরাতের জন্য সুসজ্জিত হলাম,,,,

৩।সেই নারী সবচেয়ে উত্তম যে তার
যৌবনের সমস্ত ভালবাসা আমানত রাখে তার স্বামীর জন্য,,,

.৪।পর্দা হলো কোনো ব্যক্তির ব্যক্তিগত পছন্দ।
এটা ফ্যাশনের জন্য না পরে স্রষ্টার প্রতি আনুগত্যের জন্য পরা উচিত।
এটা মানুষকে দেখানোর জন্য না পরে বরং স্রষ্টার নৈকট্য পাবার জন্য পরা উচি।

৫।আমি আমার শালীনতা
পবিত্রতা বজায় রাখার জন্য
বর্তমান স্রতের বিপরীতে
থেকে পর্দা করছি
একটু সাহস করে আপনিও এগিয়ে আসুন
চেস্টা করুন আপনিও পারবেন

৬।দাড়ির সাথে পুরুষ এবং পর্দার সাথে নারী-
এটা এ পর্যন্ত সবচেয়ে ভালো সমন্বয়।…পর্দা মেয়েদের সৌন্দর্য কে ঢেকে রাখে না, বরঞ্চ পর্দা পরপুরুষের হাত থেকে তার সৌন্দর্য কে রক্ষা করে।
– সংগৃহীত

৮।যে মেয়ে স্বগৃহ, স্বামীগৃহ, মায়ের বাড়ি ছাড়া অন্য কোনো স্থানে পর্দা রাখে না সে তার ও তার রবের মধ্যকার পর্দা ও লজ্জাশীলতাকে বিদীর্ণ করে দেয়।– হযরত মুহম্মদ (স)

৯।মেয়ে বেশ ধারী পুরুষের উপর অভিশাপ এবং পুরুষের বেশ ধারীণী মেয়েদের উপর আল্লাহর অভিশাপ।
– হযরত মুহম্মদ (স)

১০।মেয়েদের হিজাব আসলেই সুন্দর। এটা গর্বের সাথে পর, ভালোবাসার সহিত পর, অধিকারের সাথে পর।
– সংগৃহীত

১১।মেয়েদের সবচেয়ে উৎকৃষ্ট পর্দাতো দর্শকদের চোখেই বিদ্যমান।– বেনাজির ভুট্টো

মেয়েদের নিয়ে ইসলামিক স্ট্যাটাস

নারী হচ্ছে মা জাতি। আর মা জাতি হচ্ছে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জাতি। মা জাতির মতো শ্রেষ্ঠ জাতি পৃথিবীতে আর একটিও নেই। আজকে আমরা আমাদের এই পোস্টে আলোচনা করব পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জাতি নারী নিয়ে।

আপনারা অনেকেই নারীদের সম্পর্কে জানতে চান। নারীদের ইসলামিক উক্তি বা নারীদের পর্দা নিয়ে চরিত্রহীন নারীদের মেয়ে বিভিন্ন উক্তি বা বিভিন্ন তথ্য জানতে চান। আর তাই আমরা আমাদের এই পোস্টে নারীদের নিয়ে এই সকল বিষয়ে আলোচনা করেছি।

নারীদেরকে বর্তমানে বিভিন্ন জায়গায় এবং বিভিন্ন কাজে অনেক সন্মান ও শ্রদ্ধা দেওয়া হয়। ইসলামে নারীদের আল্লাহ তাআলা অনেক শ্রদ্ধা ও সম্মান বাড়িয়ে দিয়েছেন। আর তাই আমরা আজকে এই পোস্টে আলোচনা করব নারীদের কতগুলো ইসলামিক উক্তি নিয়ে।

নারীদেরকে আল্লাহ তাআলা অনেক মর্যাদা দান করেছেন। ইসলামে নারীদেরকে বিশেষ মর্যাদার চোখে দেখা হয়। নারীদের নিয়ে আল্লাহ তাআলা কুরআন মাজিদে কতগুলো আয়াত নাযিল করেছেন।

এছাড়াও আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বর্ণিত হাদীসেও নারীদের সম্মান ও মর্যাদার কথা বর্ণনা করা হয়েছে। আল্লাহ তাআলা প্রতিটি নারীকে একটি সন্তানের মা হিসেবে অনেক মর্যাদা দিয়েছেন।

হজরত আয়শা (রা.) থেকে বর্ণিত হয়েছে, ‘রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, ‘ওই স্ত্রী স্বামীর জন্য অধিক বরকতময়, যার দেন-মোহরের পরিমান কম হয় এবং যার প্রথম সন্তান হয় মেয়ে।’

রাসূলুল্লাহ (সা.) আরো ইরশাদ করেন, ‘যার গৃহে কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহন করল, অতঃপর সে তাকে (কন্যাকে) কষ্টও দেয়নি, তার ওপর অসন্তুষ্ট ও হয়নি এবং পুত্র সন্তানকে প্রাধান্য দেয়নি, তাহলে ওই কন্যার কারণে মহান আল্লাহ তায়ালা তাকে বেহেশতে প্রবেশ করাবেন।’ (মুসনাদে আহমদ, ১:২২৩)

রাসূলুল্লাহ (সা.) আরো বলেছেন, ‘যে ব্যক্তির তিনটি কন্যা সন্তান হবে, এবং সে তাদেরকে এলেম-কালাম, আদব-কায়দা শিক্ষা দিবে, এবং যত্নের সঙ্গে প্রতিপালন করবে ও তাদের ওপর অনুগ্রহ করবে! সে ব্যক্তির ওপর অবশ্যই জান্নাত ওয়াজিব হয়ে যাবে।’

যে ব্যক্তির তিনটি কন্যা সন্তান বা তিনজন বোন আছে অথবা দু’জন কন্যা সন্তান বা বোন আছে। সে তাদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেছে এবং তাদের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালাকে ভয় করেছে। তার জন্য রয়েছে জান্নাত।’ (জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৬)

যে ব্যক্তিকে কন্যা সন্তান লালন-পালনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এবং সে ধৈর্যের সঙ্গে তা সম্পাদন করেছে সেই কন্যা সন্তান তার জন্য জাহান্নাম থেকে আড়াল হবে। (জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৩)

পর্দা নিয়ে ইসলামিক স্ট্যাটাস

মেয়েদের পর্দা নিয়ে উক্তি

পর্দা নারীর অহংকার।
– ফাতিমা আল জাহরা

আর তাই তাদের বক্ষদেশে পর্দা টানা উচিত।
– আল-কুরআন

পর্দার ভেতরে নারী ঝিনুকের ভেতর সুরক্ষিত মুক্তোর মতো।
– সংগৃহীত

দাড়ির সাথে পুরুষ এবং পর্দার সাথে নারী- এটা এ পর্যন্ত সবচেয়ে ভালো সমন্বয়।
– সংগৃহীত

সূর্য মেঘে ঢাকা থাকলে যেমন তার সৌন্দয হারায় না; তেমনি একজন নারী পর্দা করলে তার সৌন্দর্য কমে যায় না।
– অ্যাঞ্জেলিনা জ্যোলি

মুসলিম নারীদের কাছে হিজাব হচ্ছে একটি ক্ষমতা।
– রান্দা আবদেল ফাত্তাহ

৭।বোনদের জন্য পর্দা করা ফরয
হে আল্লাহ্‌ সকল বোনকে পর্দা করার তৌফিক দান করুন – আমিন

পর্দা নারীর ইবাদত.

৮।সূর্য মেঘে ঢাকা থাকলে যেমন তার সৌন্দয হারায় না;
তেমনি একজন নারী পর্দা করলে তার সৌন্দর্য কমে যায় না।

৯।পর্দা নারীর ভূষণ
পর্দা নারীর অহংকার

১০।পর্দা করতে আপনার যদি লজ্জা লাগে
তবে পুরষদের খারাপ ও লোলুপ দৃষ্টি
যখন আপনার সস্তা দেহের উপত পড়ে
তখন কোঠায় থাকে আপনার লজ্জা
কোথায় থাকে আত্বমর্যাদাবোধ!

১১।কেউ কেউ তাদের শরীরকে আবৃত করার জন্য পর্দা করে,
কেউবা মনকে আবৃত করার জন্য পর্দা করে।
উভয় ক্ষেত্রেই তাদের পছন্দ কে সম্মান করো।

১২।আপনার পর্দা করা আপলোডকৃত পিকে যারা আপনাকে লাইক আর লাভ রিয়েক্ট সাথে নাইস সুবহানাল্লাহ মাশাল্লাহ বলে তারা কি আপনাকে অন্য অবস্থায় কল্পনা করে না।

১৩।মানুষ প্রতিদিন তার মত মানুষকে মৃত্যুবরণ করতে দেখে, কিন্তু নিজের মৃত্যুর কথা ভুলে যায়। হযরত উসমান (রা:)

১৪।পর্দা একটি ইবাদত
সহি নিয়ত আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য যথাযথভাবে পর্দা করতে হবে। আল্লাহর ওয়াস্তে পর্দাকে ফ্যাশন বানাবেন না বোন।

১৫।,আয়িশা পর্দা করতেন। আর তুমি বেদ্বীন বেহায়া ছেলেদের সামনে নিজের সব টা খুলে দিতেও লজ্জা পাও না! ছি: কতটা নিচে নেমে গেছো তুমি। কতটা অধঃপতন হয়েছে তোমার। কেয়ামতের দিন কোন মুখ নিয়ে আয়িশাদের কাতারে দাঁড়াবে্‌।

আরো পড়ুন,

বন্ধুর জন্য গুড মর্নিং বার্তা,এসএমএস,স্ট্যাটাস, Good Morning Messages , status

রাঙ্গামাটির পলওয়েল পার্ক,হোটেল ভাড়া, ভ্রমণ খরচ – polwel park rangamati

Liton Roy

আমি লিটন রায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা বিভাগ হতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করে 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *