পরিবহন

ঢাকা টু মাদারীপুর লঞ্চ সময়সূচী ও ভাড়া-২০২৩

আপনি কি ঢাকা থেকে মাদারীপুর রিলিজ টাইম টেবিল মূল্য ট্যাগ মূল্যের জন্য অনলাইনে খুঁজছেন? তাহলে আপনি সঠিক অঞ্চলে এসেছেন। আধুনিক সময়ের নিবন্ধে আমরা ঢাকা থেকে মাদারীপুর লঞ্চের টাইম টেবিল টিকিটের চার্জ সম্পর্কে বিস্তারিত বলতে পারি। তাই আপনি যদি ঢাকা থেকে মাদারীপুর কোর্সের যাত্রী হন বা ঢাকা থেকে মাদারীপুর যাওয়ার কথা ভাবছেন তাহলে এই লেখাটি আপনার জন্য। মাদারীপুর বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ অংশের মধ্যে অবস্থিত। মাদারীপুরকে পঞ্চদশ শতাব্দীর সুফি সাধক বদর উদ্দিন শাহ মাদার (রহ.) নামে ডাকা হয়। মাদারীপুর 1 মার্চ, 1984 তারিখে ঐতিহাসিক অতীতে সমৃদ্ধ একটি পূর্ণাঙ্গ জেলায় পরিণত হয়।

রাজধানী ঢাকা থেকে মাদারীপুর পর্যন্ত প্রায়ই অসংখ্য লঞ্চ চলাচল করে। এমভি তিরিকা 2, এমভি দীপরাজ চারটি তাদের মধ্যে কয়েকটি। আমি এই রিলিজ এজেন্ডা প্রাইস ট্যাগ রেট সহ আরো নির্দিষ্ট রিলিজ টাইম টেবিল টিকিটের দাম নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি।

ঢাকা থেকে মাদারীপুর লঞ্চ এর সময়সূচি

ঢাকা থেকে মাদারীপুর লঞ্চ ,গুলি ভবিষ্যতে প্রায়ই এক সময়ে বা একেক দিনে চলাচল করে। এই কারণে, আজকাল আমি এই নিউজলেটারে ঢাকা থেকে মাদারীপুর লঞ্চের সময় সারণী সংযুক্ত করছি।

এম ভি তরীকা – ২

এম ভি তরীকা-২ লঞ্চটি ঢাকা মাদারীপুর রুটে চলাচল করে। ঢাকার সদরঘাটে সরাসরি গিয়ে পুরো লঞ্চটি রিজার্ভও করা যেতে পারে। এটি ৭২২ জন যাত্রী ধারণক্ষমতা সম্পন্ন।

যোগাযোগ

1= সদরঘাট অফিসে যোগাযোগ করা যেতে পারে যেকোন তথ্যের জন্য।

2= যোগাযোগের ফোন নম্বর: +৮৮-০১৭১১৩৪৪৭৫০

যাত্রার সময়

1=ঢাকার সদরঘাট টার্মিনাল থেকে চারদিন পর পর মাদারীপুরের উদ্দেশ্য ছেড়ে যায়। ঈদের সময় একদিন পর পর মাদারীপুরের উদ্দেশ্য ছেড়ে যায়।

ঢাকা থেকে ছাড়ে

মাদারীপুর পৌঁছে

সন্ধ্যা ০৭.৪৫ টা

সকাল ০৯.০০ টা

মাদারীপুর থেকে  ছাড়ে

ঢাকা  পৌঁছে

দুপুর ০২.০০ টা

ভোর ০৫.০০ টা

♦ ঢাকা মাদারীপুর  রুটে চলাচল করা লঞ্চগুলোর ঢাকা থেকে ছাড়ার সময় ও যোগাযোগ নম্বর নিচে তুলে দেওয়া হল :

লঞ্চের নাম

ঢাকা থেকে ছাড়ার সময়

এম.ভি তরীকা-২

সন্ধ্যা ০৭.৪৫

এম.ভি দ্বীপরাজ-৪

সন্ধ্যা ০৭.৪৫

♦ যোগাযোগ নম্বর

লঞ্চের নাম

মোবাইল নম্বর

এম.ভি তরীকা-২

০১৭১১৩৪৪৭৫০

এম.ভি দ্বীপরাজ-৪

০১৭১৬২১৭২৭৬

♦ কেবিন বুকিং

= কখনোই মোবাইলে কেবিন বুকিং দেওয়া যায় না। যাত্রীকে সরাসরি লঞ্চে গিয়ে কেবিন বুকিং দিতে হয় ।

ঢাকা টু মাদারীপুর লঞ্চ সময়সূচী ও ভাড়া,বোটিং প্রতিটি বয়সের মানুষের জন্য একটি সম্পূর্ণ আকর্ষণীয় অ্যাডভেঞ্চার। সূর্য ধীরে ধীরে পশ্চিম গোলার্ধের মধ্যে অস্ত যায়, বিশেষত কারণ সৌর অস্ত যায়, যেমন একটি মনোমুগ্ধকর বিকেলের আশ্চর্য খেলা। যখন তুমি লঞ্চের ছাদে দোদুল্যমান হও বা দাঁড়িয়ে আকাশের দিকে তাকাও, দেখবে আবিরের রঙ, রক্ষা করবে গোধূলির কালো রঙের খেলা। কোথাও গোলাপি আবার কোথাও কমলা মায়াবী আকাশ হয়ে উঠবে অতিরিক্ত মায়াবী। তখন রবীন্দ্রসঙ্গীত বেজে উঠবে আপনার মনে। এই আকাশে আমার লঞ্চ মৃদু। ক্রুজের ভিতরে আরও অনেক উত্তেজনাপূর্ণ মুহূর্ত থাকতে পারে।

ঢাকা থেকে মাদারীপুর লঞ্চ ভাড়ার তালিকা

ঢাকা থেকে প্রায়ই মাদারীপুর লঞ্চ চলাচল করে। সেক্ষেত্রে ঢাকা থেকে মাদারীপুর লঞ্চে এক ধরনের টিকিট দেওয়া হয়। সাধারনত ০.৩৩ ক্লাসের ভাড়া এবং সেটা হল পরীক্ষায় ২শত টাকা। যাইহোক, একটি একক কেবিন যার ক্ষমতা ছয়শত টাকা। আর ডাবল কেবিন সম্ভাব্য দুই হাজার টাকা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ পরিবহন কর্তৃপক্ষ।

 ধারণক্ষমতা  ভাড়া

♦ লঞ্চের কেবিনগুলোতে ধারনক্ষমতার অতিরিক্ত প্রত্যেক যাত্রীর জন্য একটি করে ডেকের টিকেট সংগ্রহ করতে হয়।

শ্রেণী

ধারনক্ষমতা

ভাড়া

তৃতীয় শ্রেণী (ডেক)

২০০/-

সিংগেল কেবিন

০১

৬০০/-

ডাবল কেবিন

০২

১০০০/-

আরো পড়ুন,

স্বাধীনতা দিবসের নতুন ফেসবুক স্ট্যাটাস, স্বাধীনতা দিবসের কবিতা –

সত্য নিয়ে ইসলামিক উক্তি, স্ট্যাটাস কথা নিয়ে উক্তি ও বানী, সত্য সাফল্যের চাবিকাঠি 

Liton Roy

আমি লিটন রায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা বিভাগ হতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পন্ন করে 2018 সাল থেকে সমাজের অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক,মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি অবলোকন করে- জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী। নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই নবরুপ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *